Sunday, November 27, 2022
spot_img
spot_img
Homeখবরমনে কি পরে রুবি রাই কে, কলকাতার রাস্তায় হেঁটে-চলে বেড়ালেন কল্পনার নারী...

মনে কি পরে রুবি রাই কে, কলকাতার রাস্তায় হেঁটে-চলে বেড়ালেন কল্পনার নারী রুবি রায়; আসলে কে তিনি?

“রোদ জ্বলা দুপুরে, সুর তুলে নুপুরে
বাস থেকে তুমি যবে নাবতে
মনে পড়ে রুবি রায়,
মনে পড়ে রুবি রায় কবিতায় তোমাকে”

অভিনেতা ঈশান মজুমদার খুঁজে পেলেন তাঁর রুবি রায়কে। সৌজন্যে ‘রুবি রায় ৩.০’। তিনিই গেয়েছেন গানটি। কথা তাঁর, সুরও তাঁরই। গান সম্পর্কে ঈশান TV9 বাংলাকে বলেছেন, “আমরা ছোট থেকে রুবি রায়কে চিনি। আর ডি বর্মনের রুবি রায় প্রতিটি বাঙালির প্রেম। তারপর রূপঙ্করদার ভার্শান যখন হয়, তখন আমরা স্কুলে পড়ি। খুব ইচ্ছে ছিল রুবি রায়কে নিয়ে একটা কিছু করার। গানটা লেখা অনেক বছর আগে। কিছুতেই পছন্দ হচ্ছিল না। করেও উঠতে পারছিলাম না। বেশ কয়েক বছর আগে আমার নিজের একটা ভার্শান তৈরি করি। ভিডিও শুটও করি। কিন্তু রিলিজ করিনি। হয়ে ওঠেনি করা। আবার নতুন করে তৈরি করে ভিডিও শুট করেছি। প্রোগ্রাম করে রিলিজ করছি মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায়। আমার স্বল্প ক্ষমতার একটা চেষ্টা বলতে পারেন।”

কল্পনার নারী রুবি রায়। তাঁকে নিয়ে গান তৈরি হয়েছে। শৈল্পিক মনের গভীর থেকে বেরিয়ে এসেছে এই নারী। সারা কলকাতায় রেখে গিয়েছে তার ছাপ। কখনও কবিতায়।
কখনও বাস থেকে নেমেছে সে। প্রখর রোদে সুর তুলেছে নুপুরে। প্রেমিকের বুকে ব্যথা দিয়েছে বারবার। কিন্তু আর ডি বর্মনের কণ্ঠে ঝড় তোলা রুবি রায়কে আজ পর্যন্ত কেউ দেখেননি। সেই রুবিকেই এবার দেখা যাবে। মিলবে তার হদিশ।

মিউজিক ভিডিওতে রুবি রায়ের চরিত্রে দেখা যাবে অভিনেত্রী সায়ন্তনী গুহ ঠাকুরতাকে। রুবি রায়ের মতো আইনিক চরিত্র পেয়ে নিজেকে সৌভাগ্যবতী বলে মনে করছেন অভিনেত্রী। TV9 বাংলাকে সায়ন্তনী বলেছেন, “ঈশান প্রথমবার গানটি গেয়েছে। ও আমার খুব ভাল বন্ধু। কাজটা করে আমি সত্যি খুশি। এতদিন রুবি রায়কে দেখা যায়নি। তবে এই গানে দেখা যাচ্ছে। এটা পুরোটাই কল্পনা। গানে দেখা যায়, একটি ছেলে রুবি রায়কে খুঁজে বেরাচ্ছে। তাকে ছুঁতে চাইছে, কিন্তু পারছে না। আরও একটি মজার বিষয়, এই রুবি নামটি আমার পিছন ছাড়ছে না। লালবাজার ওয়েব সিরিজেও আমার নাম রুবিই ছিল। এখানেও কিন্তু তাই। গানে আমার লুকটাও বেশ অন্যরকম।”

অ্যারেঞ্জমেন্ট ও প্রোগ্রামিংয়ের দায়িত্বে ছিলেন রাহুল সরকার। মিক্সিং ও মাস্টারিং করেছেন শুভাশিস পাঠক। পরিচালনা করেছেন গৌরব দত্ত। ডিওপি চয়ন কর্মকার। ঈশানের স্টাইলিং করেছেন শিল্পা নিগোজি। সায়ন্তনীর পোশাক ডিজাইন করেছেন অনুশ্রী মালহোত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments