Wednesday, February 8, 2023
spot_img
spot_img
Homeখবরনতুন বছরে নতুন বাংলা ছবি, উপহার দিয়ে ইতিমধ্যেই মুক্তি পেয়েছে, কাকতাড়ুয়ার মাঠ।

নতুন বছরে নতুন বাংলা ছবি, উপহার দিয়ে ইতিমধ্যেই মুক্তি পেয়েছে, কাকতাড়ুয়ার মাঠ।

নতুন বছরে নতুন বাংলা ছবি, উপহার দিয়ে ইতিমধ্যেই মুক্তি পেয়েছে, কাকতাড়ুয়ার মাঠ।

সমীর দাস বৈরাগ্যর পরিচালনায়, এস বি এফ এন্টারটেইনমেন্টের নতুন বছরের দ্বিতীয় ছবি, “কাকতাড়ুয়ার মাঠ” নতুন বছরের ৬ ই জানুয়ারি সারা বাংলাজুড়ে মুক্তি পেয়েছে সপরিবারে দেখার মতো বাংলা ছবি, “কাকতাড়ুয়ার মাঠ”। ইতিমধ্যেই পোস্টারে ছেয়ে গেছে কলকাতা শহর সহ অন্যান্য এলাকা, সবকিছু ছাড়িয়ে সব বাধা পেরিয়ে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে এই বাংলা ছবি।

রোহান গামা মীরের অভিনয়ে মুগ্ধ সিনেমা প্রেমিরা। ছবির প্রচারে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে কাজ করেছেন পি সি নিউজ বাংলা পোর্টাল।
ছবির পরিচালক সমীর দাস বৈরাগ্য বলেন, আমাদের টিমের সকল মেম্বারদের পরিশ্রম সফল পেয়েছে। অনেক কষ্টের মধ্যেও আমরা খুব আনন্দিত আমাদের এস বি এফ এন্টারটেইনমেন্টের দ্বিতীয় ছবি মুক্তি পেয়েছে। এই ছবির বিষয়ে কিছু কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করছেন পরিচালক সমীর দাস বৈরাগ্য।

তিনি লেখেন, সালটা ছিল 2019 হাতে গুনে কয়েকজন। এই কয়েকজন মিলে আমরা একটি সিনেমা করার চিন্তাভাবনা করি। কিন্তু চিন্তাভাবনা করলে তো হবে না সবার আগে সিনেমা বানাতে গেলে তো পয়সা দরকার। কিন্তু পয়সা পাবো কোথায়? কেবা দেবে। তো আমরা ২০১৯ সাল থেকে কাজ করব ঠিক করি কিন্তু কোনভাবেই সেটা হয়ে উঠছিল না। এরপর অনেক জনের সাথে কথা হয়েছে বললো তোমরা করো আমরা আছি। আমরা কাজ করব। কিন্তু স্টোরি লেখা শেষ স্ক্রিপ্ট রেডি করার পরে ওরা কেউ এগিয়ে এল না।

আবারো ভেঙে পড়লাম। বাট ভেঙ্গে পড়লে হবে না আরো শক্ত হতে হবে নিজেকে। হঠাৎ এরই মধ্যে লক ডাউন শুরু হলো। ভাবলাম যে হয়তো এক সপ্তাহ দু সপ্তাহ পর উঠে যাবে কিন্তু পুরো দুটো বছর নষ্ট করে দিল। এর মধ্যেও আমরা কিন্তু থেমে থাকি নি। ফোনে ফোনে কন্টিনিউ এক দেড় ঘন্টা করে কথা বলতাম। আর বলতাম আমাদের কাজ করতে হবে। আমি খুব ভগবান বিশ্বাসী, তাই হঠাৎ করে ভগবান রুপী একজন মানুষের সাথে আমার পরিচয় হয় একদিন ফোনের মাধ্যমে।

এরমধ্যে করণা ভাইরাস একটু কম হওয়ার পর আমি আমার অফিসখুলি এবং আমার সাথে অফিসে মিট করলো ওই দাদাটা এবং মিট করার পরে আমাদের বলল চলো আমরা একসাথে ছবি বানায়। উনি আমাকে সাহস দিলেন কিছু টাকা লাগলেও দেব তুমি ছবি বানাও। আজ উনি যতোটুকুই দেখনা কেন ওনার সাহস পেয়ে কিন্তু আমরা ছবিটি শুরু করেছিলাম।

এরপর শুরু হল লড়াই, ২০২০ সালের একদম শেষের দিক ডিসেম্বরের ১৫-১৬ তারিখ আমরা এই ছবিটির শুটিং শুরু করি। এরপর ২০২১ এ আবার লক ডাউন এ ছাড়া আমাদের আর্টিস্ট, টেকনিশিয়ানের উপর অনেক অনেক বাধা এসেছে এই ছবিটা করতে গিয়ে। কিন্তু তার মধ্যেও একটি ভালো কাজ হয়েছিল সেটা হচ্ছে এই ছবিটা করতে করতেই আমার আরেকটি ছবির প্রোডিউসার পেয়েছিলাম এবং আমি ফ্যামিলি এক্সপ্রেস নামক একটি সিনেমা শুরু করেছিলাম। বাট “”কাকতাড়ুয়ার মাঠ”” ছিল আমার প্রথম ছবি কিন্তু রিলিজ হয় “”ফ্যামিলি এক্সপ্রেস”” সিনেমাটি। আমি এই ছবিটি রিলিজ দিয়েছিলাম ২০২২ সালে ১১ই মার্চ জীবনের প্রথম সিনেমা রিলিজ। তখনও প্রচন্ড আশাবাদী ছিলাম এখনো খুব আশাবাদী আছি। ভগবানকে একটা কথাই বলবো আমাদের টিমের সকল ছেলেমেয়েরা যারা আমরা রাত দিন এক করে পরিশ্রম করেছি। পরিশ্রম যেন সফল হয়।
ধন্যবাদ জানাই আমার এস বি এফ টিমকে।


উনি জনসাধারণের উদ্দেশ্যে দেখেন, কাকতাড়ুয়ার মার্ট সিনেমাটি খুবই ভালো সিনেমা, আপনাদের নিকটবর্তী সিনেমা হলে গিয়ে সিনেমাটা দেখুন সপরিবারে দেখার মত সিনেমা, অবশ্যই আপনাদের ভালো লাগবে। আগামী দিনে আরো নতুন নতুন বাংলা সিনেমা আপনাদের উপহার দিতে চাই, তাই আপনাদের আশীর্বাদ ভালবাসা দোয়া অবশ্যই কামনা করি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments