Sunday, November 27, 2022
spot_img
spot_img
Homeদেশতালিবানি আগ্রাসনের পর থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরে বড়সড় বিপদের আশঙ্কা ভারতের

তালিবানি আগ্রাসনের পর থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরে বড়সড় বিপদের আশঙ্কা ভারতের

শ্রীনগর, জম্মু ও কাশ্মীর, 31/08/2021 : আফগানিস্তানে সরকার পড়ে যাওয়া এবং তালিবানি আগ্রাসনের পর থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরে বড়সড় কোনো বিপদের আশঙ্কা করছিল ভারতের গোয়েন্দা বিভাগ। তবে গত 10 দিনে সেই আশঙ্কা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে গোটা কাশ্মীর উপত্যকা জুড়েই অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে। যে কোনো মূল্যে কাশ্মীরে শান্তি বজায় রাখতে তত্পর রয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী ।
গত 15ই অগষ্ট আফগানিস্তান দখল করে নেয় তালিবান। তালিবানদের এই অভ্যুত্থানে ব্যাপকভাবে উত্সাহিত হয়েছে পাকিস্তানে এবং পাক অধিকৃত কাশ্মীরে থাকা জঙ্গী সংগঠনগুলি। এরা যে কোনোভাবে ভারতে প্রবেশ করে নাশকতা চালাতে পারে বলে আগেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল ভারতীয় গোয়েন্দা বিভাগ। যার জন্যে কাশ্মীরের নিরাপত্তা বাহিনীকেও সতর্ক করা হয়েছিল।
বিগত 10 দিনে পাকিস্তানে থাকা জঙ্গীরা আরও বেশি সক্রিয় হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ার বেশ কিছু পোস্টে তার ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে। ভারতীয় গোয়েন্দাদের হাতে প্রমান স্বরূপ বেশ কিছু ভিডিও এসেছে, যা দিয়ে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে, পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও পাকিস্তানে থাকা বেশ কিছু জঙ্গী যে কোনোভাবে ভারতে প্রবেশ করতে মরিয়া প্রয়াস চালাচ্ছে। শুধু তাই নয়, এই জঙ্গীরা এবার ভারতে বেশ বড়সড় ‘কিছু’ করতে চায়। অনেক বড় কোনো নাশকতার ছক কষেছে।
গোয়েন্দারা সন্দেহ করছেন, এবার জঙ্গীরা কোনোভাবে সেনাবাহিনীর ওপর বড়সড় আঘাত হানার প্রস্তুতি নিতে পারে, ঘিঞ্জি ভীড়ের মধ্যে বড়সড় নাশকতা করতে পারে, ভিভিআইপিদের ওপর আক্রমণ করতে পারে। অর্থাৎ তারা এমন কিছু নাশকতার ছক কষেছে যাতে ভারতকে অনেক বড় মূল্য চোকাতে হয়।
গত 15 দিনে কাশ্মীর সীমান্তে অন্তত 10টি অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছে জঙ্গীরা। কিন্তু বিএসএফ সেই অনুপ্রবেশ প্রত্যেকবার আটকে দিয়েছে। তবে কাশ্মীরের পুঞ্চ জেলার মেন্ধার সেক্টর দিয়েই জঙ্গীরা সবচেয়ে বেধি অনুপ্রবেশ করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এই মুহুর্তে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সক্রিয় রয়েছে জৈশ ই মহম্মদ, লস্কর ই তৈবা, হিজবুল মুজাহিদিন ও অন্যান্য জঙ্গী সংগঠনগুলি।
গত কয়েকদিনের মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে এনকাউনটারে কাশ্মীরে নিহত হয়েছে বেশ কয়েকজন জঙ্গী। এদের থেকে প্রচুর অস্ত্র ও অন্যান্য সামগ্রী উদ্ধার করা গিয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বেশ কয়েকজন জঙ্গীকে। তবে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে এই মুহুর্তে ভারতে এসে নাশকতা করার জন্যে প্রস্তুত হয়ে রয়েছে প্রচুর সংখ্যক জঙ্গী, যার সঠিক খবর রয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দাদের কাছে। দিন দিযেক আগেই প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন ‘জঙ্গীদের সাফ করতে প্রয়োজনে ভারতীয় সেনাবাহিনী সীমান্ত অতিক্রম করে অপারেশন চালিয়ে আসবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments